অপরিচিত মেয়েদের সাথে কথা বলার উপায়

অপরিচিত মানে হচ্ছে যে আমাদের পূর্ব পরিচিত নয়। যেহেতু মানুষটি আমাদের অপরিচিত, তাই সে পরুষ হোক কিংবা নারী, তাঁর সাথে পরিচিত হতে হলে, কথা বলতে হলে, একটু ডিপ্লোমেটিক ওয়েতে চেস্টা করতে হবে। যদি  কোন অপরিচিত মেয়ের সাথে কথা বলতে হয় তাহলে তো আরো কৌশলি আরো চৌকষ এবং আরো সতর্কতা  অবলম্বন করতে হবে।

আসলে ছেলে এবং মেয়েদের মধ্যকার যে আকর্ষন, যে প্রেম আর যে প্রনয়, তা আল্লহরই একটি ইচ্ছার প্রতিফলন। যত দিন পৃথীবি থাকবে তত দিন এই প্রেম লীলা চলতেই থাকবে। তাইতো বাস্তব জীবনে চলাফেরার সময় কখনও কখনও কারও দিকে দৃষ্টি আটকে যায়, এক ধরনের ভাল লাগা কাজ করে। ভাল লাগার মানুষটি চোখের নিমিষেই আবার কোথায় যেন হারিয়ে যায়, এক অজানা গন্ত্যবে।

কিন্তু কখনও কখনও এমনও হয় সে মেয়েটিকে আমাদের এতই ভাল লাগে তখন তাকে কাছে পাওয়ার জন্য, কথা বলার জন্য, আমাদের জীবনের অংশীদার করার জন্য হৃদয়ের মাঝ থেকে এক ধরনের ব্যাকুলতা কাজ করে। এই ব্যাকুলতা থেকেই আমরা অপরিচিত সে মেয়েটির সাথে কথা বলতে আগ্রহী হয়ে থাকি। কিন্তু মেয়েটির সাথে কথা বলার চিন্তা মাথায় আসার সাথে সাথে বুকের ভিতরটা কেমন ধক করে উঠে। এক ধরনের লজ্জা এবং জড়তা আমরা অনুভব করি। অপরিচিত মেয়েটির সাথে কথা বলার উপায় যারা জনেন, নিজেকে প্রকাশের এবং কথা বলার দক্ষতা যারা কাজে লাগাতে পারেন তারাই মেয়েটির খুব ক্লোজ হয়ে যেতে পারেন, নিজের মনের অপ্রকাশিত ইচ্ছা পরিপূর্ণ করতে পারেন।

তো এমন কি কি স্টেপ রয়েছে যা দ্বারা আমরা একজন অপরিচিত মেয়ের সাথে কথা বলে তার সাথে একটা সম্পর্ক গড়তে পারি? চলুন আমি আর আপনি মিলে সে স্টেপগুলো খুঁজে বের করার চেস্টা করিঃ

স্টেপ নাম্বার ওয়ানঃ মেয়েটির সম্পর্কে আগে কিছু জানার চেস্টা করুন।

একটি মেয়েকে আপনি হঠাৎ দেখেই ক্রাস খেয়ে গেলেন, কল্পনায় মেয়েটিকে নিয়ে অনেক রোমান্টিক দৃশ্য চিন্তা করাও শুরু করে দিলেন কিন্তু এখন পর্যন্ত মেয়েটির বিষয়ে কোন তথ্যই নিতে পারলেন না, তাহলে আমি বলে রাখি, আপনি আর চিন্তা ভাবনা করার দরকার নেই। আপনার দারা এসব হবে না। আপনি বরং পড়াশুনায় মন দিন। কোন মেয়েকে ভালো লাগার পর প্রথম কাজই হল তাঁর সম্পর্কে বিস্তারিত জানার চেস্টা করা। যখন মেয়েটিকে আপনি দেখলেন ঠিক তখন আপনি কোথায়? রাস্তায়? রেস্টুরেন্টে? নাকি কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে? আপনি যেখানেই থাকুন বুদ্ধি বের করে মেয়েটির বিস্তারিত তথ্য জানার চেস্টা করুন। মেয়েটির কি নাম? কিসে পড়ে? তাদের বাসার ঠিকানা কোথায়? এই তথ্যগুলো আপনাকে তাঁর সাথে কথা বলার সময় অনেক সাহায্য করবে। তাই যতটুকু সম্ভব মেয়েটির বিষয়ে খোজ-খবর নিয়ে রাখুন।

স্টেপ নাম্বার টুঃ মেয়েটির সামনে নিজেকে উপস্থাপন করুন।

একজন মানুষ আপনাকে কখনও দেখেনি, আপনি কে, কেমন, আপনার যোগ্যতা কি,  আপনার ব্যক্তিত্বই বা কেমন এ সম্পর্কে মেয়েটি কিছুই  জানেনা। হঠাৎ করে উড়ে এসে মেয়েটির সাথে কথা বলতে চাইলেই মেয়েটি কথা বলা শুরু করে দিবে- এরকমটা না ও হতে পারে। অবস্থা বুঝে এক্ষেত্রে আপনাকে কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে। ধরুন আপনি কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে একটি মেয়েকে পছন্দ করেছেন। তো এই বিয়ের অনুষ্ঠানের এতো মানুষের ভিড়ে হুট করে মেয়েটির কাছে গিয়ে কিছু বলতে চাইলে হিতে বিপরীতও হতে পারে। মেয়েটির নজরে আসার জন্য উপর্যুক্ত স্থানে দাঁড়িয়ে আপনার বন্ধুদের সাথে বা পরিচিত কারো সাথে কথা বলুন। কথা বলার সময় এমন ভাবে কথা বলুন যাতে আপনার কথা বলার ভঙ্গি, সুন্দর উপস্থাপনা এবং মাঝে মধ্যে দু-এক লাইন ইংরেজি ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়গুলো মেয়েটির নজরে পড়ে। কথা বলা অবস্থায়ই মাঝে মধ্যে মেয়েটির দিকে তাকান। যদি মেয়েটিও আপনার দিকে তাকায় তাহলে তাঁর চোখে চোখ রেখে আবার বন্ধুদের সাথে আলোচনায় যোগ দিন। এভাবে কয়েকবার চোখাচোখির মাধ্যমে আপনার চেহারা মেয়েটির ব্রেনে সেভ হয়ে যাবে।

স্টেপ নাম্বার থ্রীঃ মেয়েটির পরিচিত কারো সাথে সম্পর্ক করুন।

আপনার যোগাযোগ দক্ষতা ভাল হলে, মানুষের সাথে সহজে মিশে যেতে পারলে শুধু মেয়ে নয় তাঁর পুরো পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলতে পারবেন। তবে এর জন্য শুরুতে মেয়েটি কার কার সাথে কথা বলছে সেটা দেখে তাদের কারো সাথে ভাব করতে হবে। হতে পারে যার সাথে ভাব করবেন সে আপনাকে মেয়টির সাথে পরিচয়ও করিয়ে দিতে পারে। তবে শুরুতেই অন্যকারও কাছে মেয়েটির বিষয়ে আপনার আগ্রহের বিষয়ে কিছু বলা থেকে বিরত থাকুন।

স্টেপ নাম্বার ফোরঃ কোন কিছুর সাহায্য চান।

পরিস্থিতি বুঝে মেয়েটির কাছে কোন সাহায্য চাইতে পারেন। এক্সকিউজ মি আপু, আপনার কাছে কি টিস্যু আছে? বা আপু কটা বাজে একটু বলবেন? অথবা আপু একগ্লাস পানি পেতে পারি??  যদি মেয়েটি পানি চাওয়ায় আন্তরিকভাবে আপনাকে পানি দিয়ে থাকে তাহলে তাকে ধন্যবাদ দিন। এটাই তাদের বাসা কিনা জিজ্ঞাসা করুন এবং আপনি কে, কোথা থেকে এসেছেন সে বিষয়ে পরিস্কার জানিয়ে দিন।  মানে মাথা খাটিয়ে একটা প্রয়োজনের জন্য তাঁর কাছে সাহায্য চাইতে হবে। এই সাহায্য চাওয়ার বদলোতে তাঁর সাথে কথা বলার একটা সুযোগ তৈরি হবে।

স্টেপ নাম্বার ফাইভঃ সৃজনশীল কোন কিছু করুন

কোন পার্টি বা বিয়ের অনুষ্ঠানে অথবা অন্য যে কোন অনুষ্ঠানেই সৃজনশীল কিছু করার চেস্টা করুন। বিয়ের অনুষ্ঠান হলে নাচতে পারেন বা গান গাইতে পারেন। কোন ছোট খাটো পার্টি হলে সেখানে উপস্থাপনা করতে পারেন। ভোজ অনুষ্ঠান হলে সুন্দর করে খাবার পরিবেশন করতে পারেন, পরিবেশনের সময় বুদ্ধি করে মেয়েটির সাথে কথাও বলে নিতে পারেন। অর্থাৎ আপনার সৃজনশীলতাকে যেভাবে কাজে লাগিয়ে মেয়েটির সাথে কথা বলা যায় ঠিক সেভাবে নিজেকে উপস্থাপন করুন।

স্টেপ নাম্বার সিক্সঃ সরাসরি মেয়েটির সাথে কথা বলুন

সব সময় হয়তো মেয়েটির সাথে সরাসরি কথা বলা সম্ভব হবে না। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে কথা বলার সুযোগ তৈরি হয়ে যেতে পারে। তখন সরাসরি মেয়েটির কাছে গিয়ে আত্মবিশ্বাসের সাথে কথা বলুন। আপনি প্রশ্ন করতে পারেন হঠাৎ করে মেয়েটিকে কি বলবো? আপাত সহজ কিছু প্রশ্ন দিয়ে আপনার কথোপকথন শুরু করতে পারেন। আসসালামুয়ালাইকুম, আপু আমি কি আপনার সাথে একটু কথা বলতে পারি? অথবা এক্সকিউজ মি, আপনি কি বর পক্ষের নাকি কনে পক্ষের? অর্থাৎ এমন ভাবে প্রশ্ন করতে হবে যাতে ২টা উত্তরের মাঝে একটি সঠিক উত্তর থাকেই। মেয়েটি যাতে সহজেই উত্তর দিতে পারে। এভাবে মেয়েটির সম্পর্কে কথার পিঠে কথা বলে তাকে কথার জালে  ফেলতে হবে। তবে কথা বলার স্থান, পরিবেশ, মেয়েটির আগ্রহ এসব কিছু বিবেচনা করে কথা বলতে গেলে  আপনাকে বিব্রত কর পরিস্থিতে পড়তে হবে না

সব শেষে আমি এটুকুই বলবো, অপরিচিত কোন মেয়ের সাথে কথা বলতে হলে তাকে এমন কিছু বুঝতে দিবেন না যাতে সে বুঝতে পারে আপনি তাকে লাইন মারতে চাচ্ছেন। কথা বলার পরিস্থিতিটা এমন ভাবে তৈরি করুন যাতে তাঁর কাছে এটা ন্যাচারাল একটা ঘটনা মনে হয়। তাহলে সে কোন রকম সন্দেহ না করে, আপনার সাথে কথা বলা শুরু করবে। আর একবার যখন আপনি তাঁর সাথে কথা বলা শুরু করবেন, তখন সে আপনার সাথে কথা বলবেই এমন প্রস্তুতি, উপস্থাপনা, আগ্রহ আর বিশ্বাস নিয়ে মেয়েটির সাথে কথা বলতে যান। আমদের বিশ্বাস মেয়েটিও আপনার সাথে কথা বলবে। কারন মানুষ যা বিশ্বাস করতে পারে তা অর্জনও করতে পারে। আর একটি মেয়ের সাথে কথা বলা তেমন বিশাল কিছু না।