এডোবি ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব-০১

বিশ্বায়নের এ যুগে তথ্যপ্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান অগ্রযাত্রায় গ্রাফিক ডিজাইন শব্দটির সাথে কমবেশি আমরা সবাই পরিচিত। ১৯ ফ্রেব্রুয়ারী ১৯৯০ সালে এডোবি কর্তৃক নির্মিত হয় এডোবি ফটোশপ সফটওয়ার। প্রথম দিকে ছাপার কাজে ব্যবহার করা হলেও বর্তমানে ছবি সম্পাদনার ক্ষেত্রে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে এই সফটওয়ারটি। ফটোশপ বর্তমানে উইন্ডোজ ও ম্যাক এই দুটি অপারেটিং সিস্টেমে রান করে। এডোবি ২০১৯ সাল পর্যন্ত ফটোশপের সর্বমোট ২৩ টি ভার্সন প্রকাশ করেছে।

এই পর্বে শুধমাত্র ফটোশপ সফটওয়ার ব্যবহারে প্রয়োজনীয় টুলসের হালকা পরিচিতি দেয়া হলঃ

১। টাইটেল বারঃ টাইটেল বারে ডকুমেন্ট এর নাম উল্লেখ থাকে।

২। মেনুবারঃ ফটোশপ এর ঠিক উপরে ফাইল, এডিট, ইমেজ, লেয়ার, টাইপ, সিলেক্ট, ফিল্টার ইত্যাদি প্রত্যেকটি এক একটি মেনু বার।

৩। টুল বক্সঃ ফটোশপের ঠিক বাম পাশে সরু বক্সটিকে টুল বক্স বলে। ফটো এডিটিংযের ক্ষেত্রে টুল বক্স খুবই দরকারি একটি বক্স। টুল বক্স অনেকগুলো বক্সের সমন্বয়ে গঠিত।

  • পলিগোনাল লেসো টুল, রেক্টেংগুলার মার্কি টুল, কুইক সিলেকশন ওপেন টুলস দ্বারা একটিভ লেয়ারের নির্দিষ্ট অংশ চিহ্নিত করা হয়।
  • মুভ টুলস অবজেক্ট স্থানান্তরের ক্ষেত্রে বুভয়ার করা হয়।
  • হিলিং ব্রাশ ও ক্লোন স্টাম্প টুল ছবিতে অনাকাঙ্ক্ষিত স্পট মুছে ফেলতে বা পরিবর্তন করতে সাহায্য করে।
  • টেক্স টুলস দ্বারা ছবিতে লিখা যায়।
  • আইড্রপার টুলস এর সাহায্যে ছবির যে কোন অংশের কালার বা রঙ পিক করা যায়।
  • ছবির কোন অংশ মুছে ফেলতে ইরেজার টুলসটি ব্যবহার করা হয়।

বর্তমানে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ফটোশপে ছবি এডিটিং এর বিরাট চাহিদা রয়েছে। এছাড়াও ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের মত ডিমান্ডেবল কাজগুলোও ফটোশপের দ্বারা করা যায় যার মার্কেট চাহিদা চোখে পড়ার মত। ফ্রিল্যান্সার, আপওয়ার্ক, ফাইভার ও গ্রাফিকরিভার ইত্যাদি সাইটগুলোতে দৈনিক শত শত কাজ পোস্ট হয়। ভাল স্কিল থাকলে মার্কেটপ্লেসে কাজের অভাব হয় না। 

ফটোশপ শিখার ক্ষেত্রে আমি মনে করি কোচিং সেন্টারগুলোতে সময় ও অর্থ নষ্ট না করে, একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য ঠিক করে নিয়মিত চর্চা করুন। তাছাড়া ফেইসবুক গ্রুপ, গুগল প্লাস কমিউনিটি ইত্যাদি সোসাল মিডিয়া সাইটে সিনিয়দের কাজ দেখে আইডিয়া নিতে পারেন। পরিশেষে বলবো, হ য ব র ল না করে লক্ষ ঠিক করে নিয়মিত বাসায় একটু ঘাটাঘাটি  করুন আর আমাদের পরবর্তী পর্ব গুলো দেখতে থাকুন।


Related: কিভাবে ফেসবুকে লাইক বাড়াবেন


নিচে কমেন্টস বক্সে আর্টিকেল বিষয়ে মতামত দিন

শেয়ার করার মাধ্যমে আপনার বন্ধুদের এই আর্টিকেল বিষয়ে জানার সুযোগ করে দিন