বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের মানুষ

বাংলা আমার জন্মভূমি, বাংলা আমার প্রান। মনের ভিতর সুখের ছায়া বইছে খুশির বান। এমন সুন্দর কবিতা মানায় শুধু বাংলাদেশ কে ঘিরেই। অসংখ্য কবিরা তাদের কবিতায় ফুটিয়ে তুলেছেন বাংলাদেশ নামের এক অপার সম্ভাবনাময় এক জাতির। যে জাতি কখনো হার মানতে শেখেনি অন্যায়ের সাথে, মাথা নত করেনি অত্যাচারিতদের কাছে। সে জাতির নামই বাংলাদেশ।

আমাদের সবার প্রিয় বাংলাদেশ। দক্ষিন এশিয়ার একটি জনবহুল দেশ বাংলাদেশ। বাংলাদেশের সাংবিধানিক নাম গন প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।ভূ-রাজনৈতিক ভাবে বাংলাদেশের পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরে আসামও মেঘালয়, পূর্ব সীমান্তে আসাম, ত্রিপুরা ও মিজোরাম, দক্ষিণ-পূর্ব সিমান্তে মায়ানমারের রাখাইন রাজ্য এবং দক্ষিণ উপকূলের দিকে বঙ্গোপসাগর অবস্থিত।

বাংলাদেশ এর মানুষের স্বভাব ও বৈশিষ্ট্য নিয়ে আজ আপনাদের সাথে কিছু তথ্য শেয়ার করবো।

তো চলুন পড়ে নেই বাংলাদেশের মানুষদের কিছু কমন বৈশিষ্ট্যঃ

১। বাংলাদেশের মানুষ প্রচুর কথা বলতে পছন্দ করে, তারা তাদের নিজের, সংসারের এবং আশে পাশের মানুষের বিষয়ে কথা বলায় আনন্দ পেয়ে থাকে। মজার বিষয় হল এতো কথা বলার পরও যদি বাংলাদেশের মানুষদের আপনি জিজ্ঞাসা করেন- তারা বিনা দ্বিধায় বলবে যে তারা কথা অনেক কম বলে।

২। বাংলাদেশের মানুষ গুজবে কান দেয় বেশি। এবং এই গুজব নিয়ে বাংলাদেশে প্রচুর হাস্যকর ঘটনাও আছে। বাংলাদেশ এর এক ক্ষমতাসীন দল সরকারে থাকার সময় মবাইলে মেসেজও পাঠাতে হয়েছে যে- গুজবে কান দিবেন না।  কোন একটা ঘটনার আগা গোড়া বিশ্লেষণ না করে, ঐ ঘটনা ঠিক মত না শুনেই, যতটুকু শুনেছে সেটা নিয়ে হৈ চৈ শুরু করে এবং মন্তব্য করে থাকে।

৩। বিশ্বের অন্যান্য অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশের মানুষ অনেক বেশি ধর্ম প্রিয়, কিন্তু অধিকাংশ মানুষ ধর্মীয় জ্ঞান অর্জনের আগ্রহী না। ধর্ম বিষয়ে তাদের গুরু, হুজুর, বাবা, মূর্শীদ কেবলারা যে ধারনা দিবেন- সেটা ভুল হোক কিংবা সত্য সে জ্ঞানকে সত্য মনে করে, কথা বলা শুরু করবে। কিন্তু খুব কম লোকেই আমলের বিষয়ে আগ্রহী হয়ে থাকে।

৪। বাংলাদেশের মানুষ অতিথি প্রিয়। তারা অতিথিদের আপ্যায়ন করতে পছন্দ করে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা বাংলাদেশের আতিথীয়তায় মুগ্ধ হয়ে প্রশংসা করে গেছেন। কিন্তু যতই দেশের মানুষ আধুনিক হচ্ছে, ততই এক পরিবারের সাথে আরেক পরিবারের, এক ঘরের সাথে আরেক ঘরের এবং এক পাড়ার সাথে আরেক পাড়ার মানুষের সম্পর্কের বন্ধন মজবুত না হয়ে হালকা হয়ে যাচ্ছে।

৫। পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা, চলাফেরায় এবং স্মার্টনেস এ  বাংলাদেশের মানুষ খুবই খামখেয়ালীপনা দেখিয়ে থাকে, বাস্তব জীবনের কোন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনায় এদেশের মানুষ তেমন সিরিয়াস হতে দেখা যায় না। তারা অনেক ভাগ্যে বিশ্বাস। যারা ধর্মীয় বিশ্বাসে চলাফেরা করে থাকেন তারা মনে করেন তাদের জীবনের সব কিছুই আগে থেকেই লিখিত রয়েছে এবং এক মাত্র আল্লাহই তাদের জীবন-মরনের গ্যারান্টি দিতে পারেন।

৬। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রিয় খেলা ক্রিকেট। দেশের তরুণ-তরুনী, প্রবিন-বয়স্করা সমান আগ্রহ নিয়ে ক্রিকেট উপভোগ করে থাকে। এর প্রমান দেশের মাটিতে ক্রিকেট সিরিজ হলে সে উদ্দীপনা দেখা যায় তা। আর বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাফল্য দিন দিন বেড়ে বিশ্বের দরবারে এক অনন্য মর্যাদায় অবস্থান করেছে বাংলাদেশ।

৭। ইদানিং বাংলাদেশের মানুষদের আর্থিক বিষয়ে চিন্তা ভাবনা পরিবর্তন হয়েছে। এই কারনে বিশ্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিনত হয়েছে। তারা নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পরিশ্রম করে। এদেশের জাতীয় আয়ের বড় উৎস হল- ফরেন রেমিট্যান্স। ফলে জাতীয় আয়ও বেড়ে গেছে বহু গুনে।

৮। বাংলাদেশের মানুষ রাজনীতি নিয়ে অনেক সচেতন এবং নির্বাচনের আগে এদেশের মানুষের নির্বাচনকে ঘিরে অনেক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যায়। কিন্তু কিছু কিছু এলাকায় এবং অঞ্চলে টাকার বিনিময়ে ভোট বিক্রি হতে দেখা যায়।

৯। বাংলাদেশ দূর্নীতিগ্রস্ত একটি দেশ। বাংলাদেশের দূর্নীতি দমন কমিশনের লোকেরাই দূর্নীতিগ্রস্ত। এদেশে এর থেকে বড় দূর্নীতির উদাহরন আর নেই। তাই দূর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই এখন বাংলাদেশ সরকারের সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

১০। বাংলাদেশের মানুষের প্রিয় খাবার ভাত-মাছ-শাক-সব্জি। কিন্তু সিটি শহরে এসব খাবার ছাড়াও আরো কিছু খাবার খেতে দেখা যায়। স্যান্ডউইচ, ফুচকা, টিকা কাবাব, চিকেন স্যান্ডউইচ ইত্যাদি খুব বেশি পরিমানে খেতে দেখা যায়।

এই ১০ টি কমন বৈশিষ্ট্য ছাড়াও আরো হাজার হাজার অভ্যাস, নিয়ম , কালচার বাংলাদেশ এর মানুষ চর্চা করে থাকে। এই সব হাজার হাজার কালচার নিয়েই আমাদের এই বাংলাদেশ। 

বাংলাদেশ বিষয়ে আরো জানতে ক্লিক করুনঃ