কিভাবে সাধারণ খতিয়ান এবং সহকারী খতিয়ানের সংজ্ঞা লেখা হয়

সাধারণ খতিয়ানঃ

নগদান হিসাব, মূলধন হিসাব, বিক্রয় হিসাব, আসবাবপত্র হিসাব, দেনাদার হিসাব, পাওনাদার হিসাব প্রভৃতি সাধারন খতিয়ান। প্রতিষ্ঠানে একাধিক দেনাদার ও পাওনাদার  বিদ্যমান। সাধারন খতিয়ানের মধ্য হতে শুধু দেনাদার ও পাওনাদার হিসাবদ্বয়কে মূল হিসাব নামে অভিহিত করা হয়; কারন দেনাদার ও পাওনাদার উভয় হিসাব দেনাদারবৃন্দ ও পাওনাদারবৃন্দের সমষ্টি।

সহকারী খতিয়ানঃ

সাধারণ খতিয়ানের বাইরে প্রতিটি দেনাদার  ও প্রতিটি পাওনাদারের জন্য স্বতন্ত্র খতিয়ান তৈরি করা হয়, যাতে করে নির্দিষ্টভাবে কোনো দেনাদার হতে কত টাকা পাওনা এবং কোনো পাওনাদারের নিকট কত টাকা দেনা রয়েছে সহজে জানা যায়। প্রতিটি দেনাদার ও পাওনাদারের জন্য প্রস্তুতকৃত খতিয়ানকে সহকারী খতিয়ান বলা হয়।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.