সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মানের গোপন ৭ উপায়

প্রতিটি মানুষ ভবিষ্যৎ জীবনে নিশ্চিন্তে এবং নিরাপদে থাকার জন্য পরিকল্পনা করে। প্রতিনিয়ত নেয়া ছোট থেকে ছোট ডিসিশনগুলোই একজন মানুষ কি পরবর্তী জীবনে সিকিউরড জীবনযাপন করবে নাকি আনসিকিউরড জীবনযাপন করবে সেটি নির্ধারন করে দেয়। জন্মগ্রহনের পর ধীরে ধীরে বড় হতে থাকা প্রতিটি মানব সন্তানের একমাত্র চাওয়া থাকে- একটি নিরাপদ ভবিষ্যৎ নির্মাণ। কিন্তু সবার জীবন পুষ্প শয্যা হয় না, সবাই সফল হতে পারে না। যারা জেনে অথবা না জেনে সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মাণের প্রক্রিয়াগুলো অনুসরন করে কেবল তারাই পা্রে ভবিষ্যতে নিরাপদ জীবন যাপন করতে। তাহলে চলুন জেনে নেই বেস্ট ফিউচার নির্মানের ৭টি সিক্রেট কি কিঃ-


Secret Number:01

Forget About The Past

অস্পষ্টতায়ভরা দূরের কিছুর চেয়ে কাছের স্পষ্ট কিছু দেখাই আমাদের দরকার। কারণ ভবিষ্যতের জন্য তৈরি হওয়ার সব চেয়ে সেরা পথ হলো সমস্ত বুদ্ধি, ক্ষমতা আর আগ্রহ দিয়ে আজকের কাজ করে যাওয়া। যদি কেবল আজকের কাজগুলো ভালোভাবে সম্পন্ন করতে পারো, তাহলেই তুমি নিরাপদ। অন্তত আজকের মত নিরাপদ। অতীতকে রুদ্ধ করো! অতীতকে সমাধিতে দাও। কারণ অতীতের কথা ভেবে অনেক মূর্খই মরেছে। ভবিষ্যতের ভারের সঙ্গে অতীতের বোঝা যুক্ত হয়ে আজকের বোঝা অনেক ভারি হয়ে যায়। তাই অতীতে যা কিছু ঘটে গেছে সেসবের জন্য পরিতাপ করোনা, দুংখ করো না, কারন এই মুহূর্তে তুমি দাঁড়িয়ে আছো দুই অসীমের সন্ধিক্ষনে, যে বিশাল অতীত চিরকাল রয়ে গেছে আর যে আগামি ভবিষ্যৎ চিরকাল থাকবে- আমরা এ দুই কালের কোনটাতেই থাকতে পারবোনা- এক ম্যহূর্তের জন্যেও না। তাই সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মানের জন্য অতীতের সকল গ্লানি ভুলে গিয়ে নতুন ভাবে নিজের জীবনকে সাজিয়ে নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।

Secrect Number -02

Learn From Your Mistakes

জীবনে একটি ভুলও করেনি এমন মানুষকে যদি খুঁজে বের করতে হয়, তাহলে সেই মানুষকেই শুধু পাবে যে জীবনে কোন কাজও করে নি। অর্থাৎ তুমি ভুল করেছো মানে কাজ করেছো। তোমার জীবনে কোন ভুল নেই মানে তোমার জীবনে আসলে কোন কাজও নেই। আর ভুল থেকেও দারুন দারুন ঘটনা ঘটে যেতে পারে তোমার জীবনে যা এমনকি সভ্যতার জন্যেও হয়ে উঠতে পারে কালজয়ী ঘটনা। পেনিসিলিন এবং পটেটো চিপস কিভাবে আবিষ্কার হয়েছে জানো? ভুল করে।

তাই কখনো তুমি ভুল করার পর এত বেশি অনুশোচনায় ডুবে যেয়ো না যাতে তোমার পক্ষে নতুন উদ্যোগ গ্রহন করা কঠিন হয়ে পড়ে। মনে রাখবে, একজন প্রোএকটিভ মানুষ ভুলটাকে শেখার সুযোগ হিসেবে গ্রহন করেন। পরের বার সচেতন থাকেন যাতে একই ভুলের পুনরাবৃত্তি না হয়।

সেজন্যে কোন ভুল হলে সাথে সাথে তা স্বীকার করো। ভুলগুলো নিরপেক্ষভাবে বিশ্লেষন করো, নির্ভুল ভাবে কাজ করার জন্য প্ল্যান তৈরি করো এবং জীবনে ঘটে যাওয়া প্রতিটি ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে এগিয়ে যাও। আর মনে রাখবে – A Smart man makes a mistakes, learns from it and never makes the mistake again.

Secret Number -03

Get Clear- Who You Are What you want

তুমি তোমার জীবন থেকে কি চাও? দুঃখ করেই বলতে হচ্ছে, অধিকাংশ মানুষই এই প্রশ্নের উত্তর দিবে- আমি জানি না আমি কি চাই। আর এটা খুব সহজ বিষয়ও না। আমি আসলেই জানি না আমি কি চাই? আমার আরো সময় দরকার।

দেখো, তুমি যদি নাইই জানো তুমি কে, কি তোমার পছন্দ, কিভাবে এই ক্ষুদ্র  অথচ আশ্চর্যজনক পৃথীবিতে কাজের মাধ্যমে তোমার পদচিহ্ন রেখে যেতে চাও, তা যদি তুমি নাই জানো, তবে তুমি বেশি দূর যেতে পারবে না। তুমি হারিয়ে যাবে চোরা বালিতে। তাই জেগে ওঠো, খুঁজে বের করো তোমার Passion কে, Passion খুঁজে বের করার জন্য তুমি নিজেকে এই প্রশ্নগুলো করো-

১। কোন কোন বিষয় বা জিনিসগুলো তোমাকে আনন্দ দেয়?

২। কি করতে তোমার সবচেয়ে ভাল লাগে?

৩। যদি নিশ্চিত জয়ের কথা জানো, তাহলে কোন কাজ গুলো করবে?

৪। যদি তোমাকে ১ কোটি টাকা দেয়া হয় কী করবে?

৫। কে তোমার প্রেরনার উৎস?

এই প্রশ্নের উত্তরগুলো তোমাকে বলে দিবে এই জীবন থেকে তুমি কি চাও।

Secret Number-04

Set Your Goals

একজন মানুষের যদি সুনির্দিস্ট লক্ষ্য থাকে তাহলে তার জীবনে কোন হতাশা আসে না। আমরা অধিকাংশরাই জীবনের লক্ষ্য ঠিক করতে পারি না। এ কারনে আমাদের মধ্যে হতাশা চলে আসে দ্রুত। এই হতাশা থেকে আমাদের অশান্তি তৈরি হয়, সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মান প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়। তাই একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারন এবং সে অনুযায়ী কর্মপন্থা অবলম্বন তোমার জীবনে অনেক গতি নিয়ে আসবে। তাই লক্ষ্য নির্ধারনের প্রক্রিয়াগুলো শিখে আজই ঠিক করে ফেলো তোমার জীবনের লক্ষ্যগুলো । মনে রাখবে, যে লক্ষ্য তুমি ঠিক করবে তা যেন বড় এবং অবশ্যই বাস্তব সম্মত হয়। ঢিলটা যদি চাঁদকে লক্ষ্য করে ছুড়ে মারো, কমপক্ষে তা গাছের মগডালে গিয়ে লাগবে। তাই লক্ষ্য যত বড় হবে, যত বিস্তারিত হবে, ততো ভালো হবে। সেজন্যে সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মানের জন্য লক্ষ্য নির্ধারন করে সামনে অগ্রসর হওয়া খুবই জরুরি।

Secret no-05

Live and work only for today

যত কঠিন ভারই হোক মানুষ রাত অবধি তার বোঝা বইতে পারে। যে কোন লোকই তার কাজ করতে পারে একদিনের জন্য। কোন মানুষ আনন্দে, ধৈর্য্য নিয়ে, সুন্দর ভাবে সূর্যাস্ত পর্যন্তই বেঁচে থাকতে পারে। আর জীবনের অর্থই কিন্তু তাই। অথচ আমরা দিগন্ত পারের কোন মায়া গোলাপের স্বপ্নে আচ্ছন্ন। জানালার পাশে যে অসংখ্য গোলাপ ফুটে রয়েছে তা আমরা দেখতে পাই না।

সেজন্যে আমরা আজকের সুযোগটি ঠিকমত কাজে লাগাতে পারি না। অতীতের কথা আর ভবিষ্যতের ভারের বোঝায় আমরা সমানে এগুতে পারি না। আমরা বুঝতে পারিনা- ভবিষ্যতের জন্য তৈরি হওয়ার সব থেকে সেরা সিদ্ধান্ত হল- সমস্ত বুদ্ধি, ক্ষমতা দিয়ে আজকের কাজ করে যাওয়া। মনে রাখবে- বুদ্ধিমান মানুষের কাছে প্রতিটি দিনই নতুন জীবন। আর সে মানুষই সবার চেয়ে সুখী, যে আজকের দিনকে নিজের বলতে পারেন। তাই সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য শুধু আজকের জন্য মন প্রান উজাড় করে কাজ শুরু করো।

Secrect Number-06

Create a Healthy Life Style

আমাদের সবার মধ্যেই সুস্থ থাকার ক্ষমতা আছে। সুস্থতা স্বাভাবিক। অসুস্থতা অস্বাভাবিক। কেননা আজ পর্যন্ত কেউ একথা প্রমান করতে পারেনি যে, রোগগ্রস্ত হওয়া প্রয়োজন। তাছাড়া তুমি যদি তোমার শরীরকে সুস্থ রাখতে না পারো, তাহলে তোমার মনকেও শক্তিশালী করতে পারবে না। পৃথিবীর সকল সফল মানুষ শত ব্যস্ততার মধ্যেও নিজের শরীর স্বাস্থ্যের যত্ন নেন। তাই তোমার, আমার, আমাদের প্রত্যেকের Healthy LifesTyle গড়ার জন্য আরো মনোযোগি হতে হবে। কারণ পৃথীবির সবচেয়ে মূল্যবান জিনিসটি হলো সুস্থতা। কেবল অসুস্থতা হওয়ার পরই একজন মানুষ প্রকৃতপক্ষে উপলব্ধি করতে পারেন- শারীরিক সুস্থতা কি জিনিস। তাই আজ থেকে সুস্বাস্থ্যের জন্য যা কিছু করনীয় তাই করতে শুরু করো। এবং যা কিছু বর্জনীয় বর্জন করে দাও।

Secret Number-07

Save Money for Future

Save money and you will save you. সবচেয়ে বুদ্ধিমান, ক্ষমতাশালী এবং নিরাপদ জীবনের অধিকারিতো সেই লোক যিনি অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পেরেছেন আর স্বাচ্ছন্দে জীবন যাপন করেছেন। তাই তোমাকে বুঝতে হবে আর্থিক গুরুত্বের কথা। চেস্টা করতে হবে অর্থনৈতিক ভাবে এগিয়ে যাওয়ার। বাজে খরচ কমিয়ে এবং আয় বাড়িয়ে সঞ্চয়ের মাধ্যমেই কেবল সম্ভব তোমার অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন করার। আর একটি কথা সব সময় মনে রাখবে, তুমি কতো টাকা প্রতিমাসে আয় করছো সেটি নয়, বরং প্রতি মাসে কত টাকা সঞ্চয় করতে পারছো সেটিই জানান দিবে তুমি আর্থিক ভাবে কতটুকু উন্নতি করছো।


সরকারি চাকরিজীবি, বড় ব্যবসায়ী এমনকি বড় বাড়ি বা গাড়ির জন্যে উন্মাদ হয়ে যাই আমরা। কারন আমরা মনে করি চাকরি, বাড়ি এবং গাড়ি আমাদের নিরাপত্তা দিতে পারবে। অথচ নিরাপদ জীবন আর নিরাপত্তার নিশ্চয়তা, শুধু আল্লাহর কাছেই পাওয়া যায়। আল্লাহ চাইলে বাড়ি গাড়ি এবং অর্থ দিয়ে আমাদের নিরাপদ রাখতে পারেন আবার এসব ছাড়াও তিনি আমাদের নিরাপদে রাখতে পারেন। সব আল্লাহর অশেষ দয়া ছাড়া আর কিছুই নয়। আল্লাহর দয়ার পাশাপাশি উপরে বর্ণিত পয়েন্টসগুলো পালন করতে পারলে বেস্ট ফিউচার নির্মাণ আমাদের জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে।

নিচে কমেন্টস বক্সে আর্টিকেল বিষয়ে মতামত দিন

শেয়ার করার মাধ্যমে আপনার বন্ধুদের এই আর্টিকেল বিষয়ে জানার সুযোগ করে দিন