কীভাবে অলসতা দূর করা যায়

laziness বা  অলসতা মানে কর্ম বিমূখতা। নিষ্ক্রিয় কর্মবিমুখ কিংবা উদ্যমহীন ব্যাক্তিকে অলস বলা হয়। এই যুগে অলস ব্যক্তিদের কেউই কদর করে না। সেজন্য উদ্যমহীনতাকে দূর করে অলসতা কি, অলসতা কাটানোর উপায়, অলসতা দূর করার দোয়া ইত্যাদি সম্পর্কে মানুষ জানতে চায়। অলসতা কি এটি বুঝতে এই ছোট্ট লাইনটি যথেষ্ট- Everything is easy when you are crazy. Nothing is easy when you are lazy. তাই অলসতা থেকে মুক্তির উপায়গুলো প্রয়োগ করে কর্মময় জীবন গড়ায় মনোনিবেশ করাই আমাদের উচিত। নিচে আলসতা দূর করার উপায় গুলো উপস্থাপন করা হলো। বর্নিত উপায়গুলোর মধ্যে ১নং উপায়টি প্রয়োগ করে আমি আমার অলস জীবন থেকে মুক্তি পেয়েছি।

৫। শারীরিক ব্যায়াম করুনঃ

অলসতা দূর করার উপায় সমন্ধে যখন জানার আগ্রহ আপনার রয়েছে তখন আপনাকে বলে রাখি যদি নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম, হাঁটাচলা, খেলাধুলা, যোগ ব্যায়াম, নাচ ইত্যাদির কোন একটি মাধ্যমের সাথে যুক্ত থেকে সেগুলো কন্টিনিউ করতে পারেন তাহলে অলসতা আপনার উপর ভর করতেই পারবেনা। কারণ ব্যায়ামের মধ্যে থাকলে মানে পিজিক্যালি সক্রিয় থাকলে আলস্য দূরে পালিয়ে যায়।

৪। আনন্দ! আনন্দ! আনন্দঃ

আচ্ছা আমাদের জীবনকি আনন্দময়? ক্রমাগত জীবনটাকে নিরানন্দ করে গড়ে তোলার জন্য এক মোক্ষম হাতিয়ার হিসেবে আমরা নিজেরাই দায়ী। অথচ যে আনন্দের খোঁজে আমরা ব্যস্ত সে আনন্দ আমাদের চারপাশেই বিরাজমান। যদি ছোট ছোট পদক্ষেপের মাধ্যমে আমরা জীবনে আনন্দ নিয়ে আসতে পারি। তাহলে জীবন সম্পর্কে নতুন করে আগ্রহ তৈরি হবে এবং আলস্যময় জীবন থেকে মুক্ত হয়ে আমরা কর্মময়, আনন্দময় জীবন গড়তে পারব।

৩। বিছানা থেকে দূরে থাকুনঃ

জোরালো মোটিভেশন নিয়ে কাজ শুরু করার পুরো আলস্যে হারিয়ে যেতে পারেন। অধিকাংশ সময়ে বেডে বসে কাজ শুরু করার কারনে আলস্য আমাদের মাঝে ভর করে। তাই অলসতা থেকে মুক্তি পেতে বিছানায় বসে, আধো শুয়ে, শুয়ে কাজ করা থেকে বিরত থাকুন তাহলে আলস্য আপনার ধারে কাছেও আসতে পারবেনা।

২। ছোট ছোট পদক্ষেপঃ

অলসতা থেকে মুক্তির দোয়া পড়ার পাশাপাশি ছোট ছোট পদক্ষেপ নিন। অল্প অল্প করে প্রতিদিন কিছু নির্দিষ্ট কাজ করতে থাকুন। কয়েকদিন পর দেখবেন সে কাজের প্রতি আলাদা আগ্রহ তৈরি হয়েছে। আর কোন কাজে আগ্রহ থাকলে অলসতা সেখানে বেশি স্থায়ী হয় না। ছোট ছোট পদক্ষেপ বা Small Steps অলসতা থেকে মুক্তির অন্যতম সেরা উপায়।

১। নিজেকে ব্যস্ত রাখুনঃ

কথায় আছে- যত ব্যস্ত তত সুস্থ। যত আরাম তত ব্যারাম। ব্যস্ততা শুধু আলসেমি দূর করে না, এটি টেনশন, অসুস্থতা দূর করে। যদি নিত্য নতুন কাজের মাধ্যমে অলসতা দুরের ইস্লামিক উপায় খোঁজার পাশাপাসি নিজেকে কর্ম্ব্যস্ত রাখতে পারেন তাহলে অলসতা দূর করার উপায় আর খুজতে হবে না। তাই আলসেমি দূর করার জন্য নিজেকে কাজে ব্যস্ত রাখুন।

প্রিয় পাঠক, অলসতা দূর করার যে উপায়গুলো জানলেন সেগুলো বাস্তবে প্রয়োগ করুন। কোন কাজকেই আগামী দিনের জন্য ফেলে রাখবেনা। মনে রাখবেন- Now Or Never. মানে এখন না তো কখনইনা। তাই এখনি ছোট ছোট পদক্ষেপের মাধ্যমে শারীরিক মানসিক ভাবে আনন্দের সাথে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। অলসতা কাটানোর উপায়ের মধ্যে এগুলোই সবছেয়ে পরীক্ষিত উপায়।

নিচে কমেন্টস বক্সে আর্টিকেল বিষয়ে মতামত দিন

শেয়ার করার মাধ্যমে আপনার বন্ধুদের এই আর্টিকেল বিষয়ে জানার সুযোগ করে দিন